'জিতলে বাইরে থেকে সমর্থন', ভোট শেষ হওয়ার আগেই ঘোষণা মমতার
হুগলি, ১৫ মে (হি. স.): ২০২৪-এ দিল্লিতে সরকার গড়বে ইন্ডি জোট। সেই সরকারকে বাইরে থেকে সমর্থন করবে তৃণম
'জিতলে বাইরে থেকে সমর্থন', ভোট শেষ হওয়ার আগেই ঘোষণা মমতার


হুগলি, ১৫ মে (হি. স.): ২০২৪-এ দিল্লিতে সরকার গড়বে ইন্ডি জোট। সেই সরকারকে বাইরে থেকে সমর্থন করবে তৃণমূল কংগ্রেস। পঞ্চম দফার ভোটের আগেই দলের অবস্থান জানিয়ে দিলেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বুধবার তিনি হুগলিতে রচনা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সমর্থনে প্রচার সভায় বলেন, চার দফায় যে ভোটগ্রহণ হয়েছে, তাতে বিজেপি হারবে। বাকি তিন দফাতেও জেতার খুব একটা সম্ভাবনা নেই। অনেক চিৎকার করবে, ইনিয়ে বিনিয়ে কথা বলবে, জুমলাবাজি করবে, কিন্তু জিততে পারবে না।

তাঁর কথায়, অনেকে অনেক অঙ্ক কষছেন। তাই জেনে রাখুন, বাংলার সিপিএম-কংগ্রেসকে ধরবেন না, কারণ ওরা বিজেপির সঙ্গে রয়েছে। আমি দিল্লির কথা বলছি। সেখানে আইএনডিআই জোটকে নেতৃত্ব দিয়ে, বাইরে থেকে সমর্থন দিয়ে সরকার গঠন করে দেব আমরা। যাতে বাংলার মা-বোনেদের কোনও অসুবিধা না হয়, ১০০ দিনের কাজের টাকা না আটকায়।

‘ইন্ডি’ জোটের নামকরণ তিনিই করেছেন বলে দাবি করেন মমতা। বস্তুত গোটা দেশে বিরোধী নেতাদের এক ছাতার তলায় আনার ক্ষেত্রে তিনি অগ্রণী ভূমিকা নেন বলেও দাবি তাঁর। এই সঙ্গে তাঁর অভিযোগ, রাজ্যে কংগ্রেসের সঙ্গে আসন সমঝোতা হয়নি তৃণমূলের। রাজ্যের শাসকদলের দাবি, প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীর সিপিএম প্রীতিই এর জন্য দায়ী।

আবার রাজ্যের অন্যান্য দল এইসব দাবি ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছে। কংগ্রেস বলে, তৃণমূল তাঁদের নামমাত্র দুটি আসন ছাড়তে চেয়েছিল। তাই আলাদা লড়ার সিদ্ধান্ত। কারণ যাই হোক, রাজ্যে ‘ইন্ডি’ জোটের দুই শরিক বাম ও কংগ্রেসের সঙ্গে আসন সমঝোতা হয়নি তৃণমূলের।

পরবর্তী কালে মমতা বারবার বলেছেন, জোটের ব্যাপারটা তিনি ভোটের পর দেখে নেবেন। অর্থাৎ ভোট পরবর্তী পরিস্থিতিতে প্রয়োজনে ‘ইন্ডি’ জোটের সঙ্গে যে তৃণমূল যোগ দিতে পারে, সেটা একাধিকবার স্পষ্ট করেছেন তৃণমূল নেত্রী। তবে এই প্রথম তাঁর অবস্থানে খানিকটা পরিবর্তন লক্ষ্য করা গেল। এতদিন মমতা বলতেন, দিল্লিতে জোট সরকার হলে তৃণমূলই নেতৃত্ব দেবে। এবার তিনি বললেন, দিল্লিতে জোট সরকার হলেও সেই সরকারকে বাইরে থেকে সমর্থন করবে তাঁর দল।

হিন্দুস্থান সমাচার / অশোক




 

 rajesh pande