এবার এই দেশের লাগাম কার হাতে তুলে দেবেন তা জনগণেরই সিদ্ধান্ত, মন্তব্য শাহর
হুগলি, ১৫ মে (হি. স.) : কংগ্রেস ও তৃণমূলের দুর্নীতির সবিশেষ উল্লেখ করে বুধবার হুগলিতে নির্বাচনী সভায়
“এবার এই দেশের লাগাম কার হাতে তুলে দেবেন তা জনগণেরই সিদ্ধান্ত”, মন্তব্য শাহর


হুগলি, ১৫ মে (হি. স.) : কংগ্রেস ও তৃণমূলের দুর্নীতির সবিশেষ উল্লেখ করে বুধবার হুগলিতে নির্বাচনী সভায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র ও সমবায় মন্ত্রী এবং ভারতীয় জনতা পার্টির বরিষ্ঠ নেতা অমিত শাহ মন্তব্য করলেন, এবার এই দেশের লাগাম কার হাতে তুলে দেবেন তা জনগণেরই সিদ্ধান্ত।

একদিকে ইন্ডি জোটের দুর্নীতিবাজরা ১২ লাখ টাকার কেলেঙ্কারি করেছে, অন্যদিকে ২৩ বছর মুখ্যমন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রী থাকা সত্ত্বেও ২৫ পয়সারও কোনও অভিযোগ নেই। একদিকে রাহুল গান্ধী আছেন, যিনি গরম বাড়লেই ছুটি কাটাতে বিদেশে চলে যান, আর অন্যদিকে আছেন নরেন্দ্র মোদী তিনি ২৩ বছর ধরে একটিও ছুটি নেননি এবং জওয়ানদের সঙ্গে দীপাবলি উদযাপন করেন। নরেন্দ্র মোদীর তৃতীয়বার বিজয়ের পর সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রণ হবে, মাফিয়া রাজের অবসান হবে এবং কাটমানিও দূর হবে।

শাহ বলেন, “কবির শঙ্কর বসুকে দেওয়া প্রতিটি ভোটই নরেন্দ্র মোদীকে তৃতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী করার দিকে যাবে। এটা নির্ভর করবে জনগণের উপর, যে তারা এমন একটি ইন্ডি জোট চায় যারা নিজেদের কোটিপতি বানাবে, নাকি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জিকে চান, যিনি ৩ কোটি লাখপতি দিদি বানাবেন। ‘ইন্ডি’ জোটের চিনা গ্যারান্টি নাকি নরেন্দ্র মোদীর দৃঢ় প্রতিশ্রুতি চায়। অনুপ্রবেশকারী চায় নাকি, নরেন্দ্র মোদীকে চায়, যিনি সিএএ-র মাধ্যমে উদ্বাস্তুদের নাগরিকত্ব দিয়েছেন, আমরা কি জিহাদের জন্য ভোট চাই নাকি উন্নয়নের জন্য ভোট চাই? এদিন অনুষ্ঠানে মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন মন্ত্রী ভূপেন্দ্র সিং, শ্রীরামপুর লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী কবির শঙ্কর বোস, জেলা সভাপতি মোহন চাঁদ অটক এবং অন্যান্য নেতারা মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন।

হিন্দুস্থান সমাচার / অশোক




 

 rajesh pande