বাংলাদেশের সাংসদের দেহাংশের খোঁজে নৌসেনার সাহায্য নিল সিআইডি
কলকাতা, ৩ জুন, (হি স): বাংলাদেশের সাংসদের দেহাংশের খোঁজে নৌসেনার সাহায্য নিল সিআইডি। সোমবার বাগজোলা
বাংলাদেশের সাংসদের দেহাংশের খোঁজে নৌসেনার সাহায্য নিল সিআইডি


কলকাতা, ৩ জুন, (হি স): বাংলাদেশের সাংসদের দেহাংশের খোঁজে নৌসেনার সাহায্য নিল সিআইডি। সোমবার বাগজোলা খালে বিশেষ মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে তল্লাশি নৌসেনার।

গত ১২ মে ভারতে এসেছিলেন বাংলাদেশের সাংসদ আনোয়ার-উল-আজিম। তার পর ৯ দিন ধরে খোঁজ মিলছিল না আনোয়ার উল-আজিমের। পরে জানা যায়, কলকাতায় চিকিৎসা করাতে এসে খুন হয়েছেন বাংলাদেশের সাংসদ। পুলিশের দাবি, নিউটাউনের ফ্ল্যাটে খুন হয়েছিলেন বাংলাদেশের সাংসদ আনোয়ার-উল-আজিম। পরে চামড়া ছাড়িয়ে টুকরো টুকরো করে তাঁর দেহ কাটা হয়। এখনও মেলেনি আওয়ামি লিগ সাংসদের সব দেহাংশ।

যে অস্ত্র দিয়ে ওই সাংসদকে খুন করা হয়েছে বলে অনুমান, তাও পাওয়া যায়নি বলে খবর। একজন আধিকারিক, হেডফোন লাগিয়ে সেন্সরের মাধ্যমে বাগজোলা খালের অন্দর থেকে কিছু খোঁজার চেষ্টা করেন। অস্ত্র তৈরিতে সাধারণত যে ধাতব পদার্থ ব্যবহার করা হয়, তার খোঁজেই এই বিশেষ মেটাল ডিটেক্টরের প্রয়োগ।

পাশাপাশি, কোনও ব্যাগ পাওয়া যায় কিনা, তারও খোঁজ চলছে। নৌসেনার তরফে যে খোঁজ চলে, পাড় থেকে দাঁড়িয়ে তা পর্যবেক্ষণ করেন সিআইডি আধিকারিকরা। নামেন ডুবুরিও। কিন্তু অস্ত্র বা দেহাংশ কিছুরই খোঁজ মেলেনি। ঘণ্টাদুয়েরও বেশি সময় ধরে এই তল্লাশি চলে বলে খবর। অভিযুক্তের তরফে যেখানে অস্ত্র ফেলে দেওয়ার কথা বলা হয়েছিল, আদৌ তা সেখানে ফেলা হয়েছিল নাকি অন্যত্র কোথাও ফেলা হয়, সেটিও বোঝার চেষ্টা করেন নৌসেনা আধিকারিকরা।

হিন্দুস্থান সমাচার/ অশোক




 

 rajesh pande