Custom Heading

গ্যালাক্সিতে বিশাল গর্তের সন্ধান পেলেন বিজ্ঞানীরা
নয়াদিল্লি, ২৫ সেপ্টেম্বর (হি.স) : গ্যালাক্সিতে সুবিশাল গহ্বরের সন্ধান পেলেন জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা । মিল
গ্যালাক্সিতে বিশাল গর্তের সন্ধান পেলেন বিজ্ঞানীরা


নয়াদিল্লি, ২৫ সেপ্টেম্বর (হি.স) : গ্যালাক্সিতে সুবিশাল গহ্বরের সন্ধান পেলেন জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা । মিল্কিওয়ে গ্যালাক্সির দূর থেকে দূরান্তরে খোঁজ চালাচ্ছেন জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা। সেই খোঁজেই সন্ধান মিলল এক সুবিশাল গহ্বর বা গর্তের। গোলাকার গর্তটা আকারে এতই বড় যে এক মাথা থেকে আর এক মাথায় পৌঁছতে সময় লাগবে প্রায় ৫০০ আলোকবর্ষ।

বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, এই গর্তের অবস্থান টরাস (বৃষ) এবং পারসিউস রাশির মধ্যে। কোনও এক প্রাচীন সুপারনোভার ফলে ১ কোটি বছর আগে এটির জন্ম বলে মত তাঁদের।

জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা কাছাকাছি এলাকার আণবিক মেঘের (মলিকিউলার ক্লাউড) আকার-আকৃতির থ্রিডি ম্যাপ নিয়ে চর্চা করছিলেন। তাঁরা বুঝতে পারেন, ওই রহস্যময় গর্তটিকে আবৃত হয়ে রয়েছে পারসিউস এবং টরাসের আণবিক মেঘ দিয়ে, যে এলাকায় তারার জন্ম হয়। এর নাম দেওয়া হয়েছে ‘পার-ট শেল’।

দ্য অ্যাস্ট্রোফিজিক্যাল জার্নাল লেটার্সে প্রকাশিত স্টাডিতে বলা হয়েছে, এতদিন যা তত্ত্ব হিসেবে আলোচিত হত, এবার সেই মলিকিউলার ক্লাউডের প্রথম থ্রিডি অবজার্ভেশনাল ভিউ পাওয়া যাবে। হার্ভার্ড অ্যান্ড স্মিথসোনিয়ান-এর সেন্টার ফর অ্যাস্ট্রোফিজিক্স-এর গবেষকরা জানাচ্ছেন, এই নতুন আবিষ্কার থেকে বোঝা যাচ্ছে, পারসিউস এবং টরাসের আণবিক মেঘ মহাকাশের স্বাধীন কাঠামো নয়। একই সুপারনোভার শকওয়েভের ফলেই সৃষ্টি হয়েছে দুটো। –হিন্দুস্থান সমাচার / কাকলি


 rajesh pande